পুশ আপ করার সঠিক সময় ও পুশ আপ করার নিয়ম জেনে নিন

বডি বিল্ডিং কিংবা শারীরিক সুস্থতার জন্য পুশ আপ ব্যায়ামের উপকারিতা অপরিসীম। তাই যারা বডি বিল্ডার হতে চান অথবা শরীর ঠিক রাখতে চান তারা নিয়মিত পুশ আপ ব্যায়াম করতে পারেন। পুশ ব্যায়াম করার ক্ষেত্রে কিছু নির্দিষ্ট নিয়ম রয়েছে এবং সেই সাথে সঠিক সময় মেনে ব্যায়াম করা জরুরী। আজকের এই আর্টিকেলে পুশ আপ করার সঠিক সময় এবং পুশ আপ এর নিয়ম সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা হবে।


যারা পুশ আপ কি এবং পুশ আপ করলে কি হয় এ সমস্ত বিষয়ে জানতে চান তারা আর্টিকেলের শেষ পর্যন্ত ধৈর্য ধরে সঙ্গে থাকুন। আর বেশি কথা না বাড়াই, চলুন পুশ আপ ব্যায়াম সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করি।


পুশ আপ কি?


মূলত পুশ আপ হচ্ছে এক ধরনের শরীরচর্চা ব্যায়াম। যে ব্যায়ামটি করার জন্য কোন ধরনের সরঞ্জামের প্রয়োজন হয় না। সাধারণত দুই হাতের উপর ভর করে শরীরকে ওঠানামা করানো হয়। যাকে বাংলায় বুক ডাউন বলা হয়।


পুশ আপ করার সঠিক সময়


যেকোন ব্যায়াম করার ক্ষেত্রে নির্দিষ্ট সময় মেনে চলা উচিত। বিশেষ করে সকালে অথবা বিকালে ব্যায়াম করলে বেশি কার্যকর ফলাফল পাওয়া যায়। ঠিক তেমনি পুশ আপ করার সঠিক সময় হচ্ছে সকাল অথবা বিকাল। প্রতিদিন সকালে ঘুম থেকে উঠার পর অথবা সন্ধ্যার সময় পুশ ব্যায়াম করা যেতে পারে। প্রতিদিন সকালে অথবা বিকালে সঠিক নিয়ম মেনে পুশ আপ ব্যায়াম করলে ভালো ফলাফল পাওয়া যায়। 


পুশ আপ এর নিয়ম 


আমরা ইতিমধ্যে পুশ আপ করার নিয়ম সম্পর্কে একটি আর্টিকেল শেয়ার করেছি। যে আর্টিকেলটি অনুসরণ করলে পুশ আপ এর নিয়ম সম্পর্কে বিস্তারিত জানা যাবে। তারপরেও পুশ আপ ব্যায়াম করার সংক্ষিপ্ত নিয়ম দেওয়া হল -

  1. প্রথমে সামনের পজিশনে উপুড় হয়ে শুয়ে ২ হাত সোল্ডারের একটু বাইরে করে সোজা করে পজিশন করে নিতে হবে। 
  2. এরপর শরীরকে একদম সোজা করে লম্বালম্বিভাবে পজিশন করে নিতে হবে।
  3. দুই পায়ের মাঝখানে অল্প পরিমাণ ফাঁক রেখে পজিশন করতে হবে।
  4. এরপরে শরীরকে ওঠানামা করে পুশ আপ ব্যায়াম করতে হবে। অর্থাৎ, শরীরকে উপরে এবং নিচে ওঠানামা করতে হবে।

Also Read:

পুশ আপ করলে কি হয়?


প্রতিদিন সঠিক নিয়ম মেনে সময় মত পুশ আপ ব্যায়াম করলে নানা ধরনের উপকারিতা পাওয়া যায়। পুশ আপ করলে কি হয় বা কি ধরনের উপকারিতা পাওয়া যায় তা নিচে দেওয়া হল -

  • পুশ আপ ব্যায়াম শরীরের শক্তি বৃদ্ধি করে।
  • অপ্রয়োজনীয় অতিরিক্ত ক্যালোরি ঝরে পড়ে।
  • মানসিক শক্তি দৃঢ় করতে সাহায্য করে।
  • আত্ম বিশ্বাসের পরিমাণ বহুগুণে বেড়ে যায়।
  • পা থেকে মাথা পর্যন্ত শরীরের প্রত্যেকটি মাংসপেশি শক্তিশালী হয়ে উঠে।
  • রক্ত চলাচল স্বাভাবিক পর্যায়ে রাখতে সাহায্য করে।
  • শরীরের ভারসাম্য বজায় থাকে।
  • মাংসপেশির ঘনত্ব ঠিক থাকে।
  • হৃদস্পন্দন স্বাভারিক রাখতে সাহায্য করে।

সর্বশেষ কথাঃ পুশ আপ কি, পুশ আপ করার সঠিক সময় ও উপকারিতা সহ বিভিন্ন বিষয়ে আলোচিত আর্টিকেলটি নিশ্চই আপনাদের অনেক ভালো লেগেছে। এ ধরনের ফিটনেস সম্পর্কিত গুরুত্বপূর্ণ আর্টিকেল নিয়মিত পড়তে আমাদের সঙ্গে থাকুন।

Previous Post Next Post